রাধারমণ দত্তের একটা গান ও কিছু প্রশ্ন || অনিমেষ বিজয় চৌধুরী

রাধারমণ দত্তের একটা গান ও কিছু প্রশ্ন || অনিমেষ বিজয় চৌধুরী

বৈষ্ণব কবি রাধারমণ দত্তের গানে শুদ্ধতার বিষয়টি ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে। শিল্পী, গবেষক ও অনুরাগীদের সমন্বিত প্রয়াস এই অমূল্য সম্পদকে সুরক্ষা দিক এই প্রত্যাশায় এবং শুধুমাত্র সংগীতের একজন ছাত্র হিসেবে জানার ইচ্ছা আমাকে দিয়ে লেখাটি লিখিয়ে নিলো।

প্রথম আলোচ্য গান — ‘আমার বন্ধু দয়াময়’।

পরবর্তী প্রজন্মের শিল্পীদের জন্য তুলনামূলক আলোচনা করে গানের একটি মান্য পাঠ নির্ণয় করা হয়েছে এমন একটি প্রবন্ধ থেকে (স্মারকগ্রন্থে মুদ্রিত) এবং প্রায় এ-রকমই শোনা যায় বলে নিচে গানটির বাণী (পাঠভেদ সহ ) দিলাম।

আমার বন্ধু দয়াময়, তোমারে দেখিবার মনে লয়
তোমারে না দেখলে রাধার জীবন কেমনে রয়

এটি একটি সাক্ষাৎখেদ  পর্যায়ের গান। কিন্তু অন্তরাগুলোতে এসে আমরা দেখি এটি বিচ্ছেদ পর্যায়ে রূপান্তরিত হয়ে যায়। যেমন —

কদমডালে বইসা রে বন্ধু রঙ্গে ঢঙ্গে আগা

পাঠভেদ —

কদমডালে বইসা রে বন্ধু ভাঙ্গো কদমেরই আগা
শিশুকালে প্রেম শিখাইয়া যৌবনকালে দাগা

মুখড়ায় মূল ভাব ছিল সাক্ষাৎখেদ, অন্তরাতে এসেই হয়ে গেল বিচ্ছেদ।

তর্কের খাতিরে যদি আমরা বলি যে এটি বিচ্ছেদ পর্যায়ের গান, তবে বলতে হয় “আমার বন্ধু দয়াময়” কথাটি কে কাকে সম্বোধন করে বলছে? অরণ্যে তো রোদন হয় না। এখানে গানের বাণীতে সেটি সর্বদাই অনুপস্থিত দেখি।

তারপরের অংশটি এইরকম —

তমালডালে বইসা রে বন্ধু বাজাও রঙ্গের বাঁশি
সুর শুনিয়া রাধার মন হইল যে উদাসী

তমালের ডালে বসে কৃষ্ণের বাঁশি বাজানোর উদাহরণ বৈষ্ণব সাহিত্যে হয়তো থাকতে পারে, তাই এমন পদ রয়েছে। এখানে আমার জানার পরিধি সীমিত| কেউ জানিয়ে দিলে কৃতার্থ হব।

এবারে আসি ভণিতাযুক্ত পদে —

ভাইবে রাধারমণ বলে মনের কথা কয়
কৃষ্ণপ্রেমে রাধার মন প্রেমানলে দয়

এখানে “ভাইবে রাধারমণ বলে মনের কথা কয়”-তে এক পদে দু-বার মনে ভাবার বিষয়টি চলে আসে।

যেমন অনেক গানেই আমরা শুনি — “ভাইবে রাধারমণ বলে মনেতে ভাবিয়া”, যা এলোমেলো বোধ হয়! মনে হয় এই পদ রাধারমণের হতে পারে কি? মনে তো ভেবেই বলছেন, তবে আর কেন ভাবতে হবে!

সময় আর মেধাবী মননের কাছে অনেক প্রশ্নের উত্তর প্রত্যাশায় লেখাটি শেষ করছি।


অনিমেষ বিজয় চৌধুরী। রবীন্দ্রসংগীতের শিল্পী ও শিক্ষক। গীতবিতান বাংলাদেশ সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। নিবাস সিলেট

… …

গানপার

COMMENTS

error: