কলকাতা কেন জয়া চ্যাটার্জি পড়তে চায় না? || সুমন রহমান

কলকাতা কেন জয়া চ্যাটার্জি পড়তে চায় না? || সুমন রহমান

SHARE:

জয়া চ্যাটার্জির The Spoils of Partition পড়ছি। বাংলায়। ‘দেশভাগের অর্জন’ নামে বাংলা সংস্করণ বেরিয়েছে বাংলাদেশ থেকে। অবশ্য ইংরেজি মূল বইটা প্রতি দেড় বাক্য পরপরই হাতড়াতে হচ্ছে। তবুও বাংলাতেই পড়ব ঠিক করেছি। বিশেষ কারণে।

জয়া চ্যাটার্জির বিখ্যাত বই ‘বেঙ্গল ডিভাইডেড’ নব্বই দশকের মাঝামাঝি বেরিয়েছিল। বেশ কয়েক বছর আগে বাংলা অনুবাদও বেরিয়েছে। এটাও বাংলাদেশ থেকে। কলকাতার মতো এত বিরাট বইয়ের বাজার, অনুবাদকালচার ও পাঠকগোষ্ঠী কেন জয়া চ্যাটার্জির মতো বিশ্বনন্দিত ইতিহাসবেত্তার ব্যাপারে আগ্রহী নয়? কলকাতা কেন জয়া চ্যাটার্জি পড়তে চায় না?

এর জবাব ‘বেঙ্গল ডিভাইডেড’ বইতেই আছে। সেখানে জয়া দেখিয়েছেন, দেশভাগের জন্য সাধারণভাবে মুসলিম লীগ তথা মুসলমানদের বিচ্ছিন্নতাবাদী মনোভাবকে দায়ী করা হয়, তা অন্তত বাংলা ভাগের ক্ষেত্রে সত্য নয়। বাংলা ভাগের মূল কারিগর বেঙ্গল কংগ্রেস ও কলকাতার হিন্দু ভদ্রলোকেরা। তারা সংখ্যাগুরু মুসলমানদের রাজ্যশাসনের অধিকার মানতে চান নাই বলেই বাংলাকে ভাগ করেছেন। পূর্ববঙ্গের মুসলমান এবং হিন্দুরা অবস্থার শিকার মাত্র।

এই কথা এর আগে আবুল হাশিম সোহরাওয়ার্দি সহ অনেকের জবানিতেই ভাঙা ভাঙা জানা গেছিল। কিন্তু তারা যেহেতু মুসলমান, যেহেতু ইতিহাসবেত্তা নহেন, ফলে তাকে ‘রাজনৈতিক’ বা ‘বানানো’ বলে উড়িয়ে দেয়া সহজ ছিল। জয়া তো ডাকসাইটে অ্যাকাডেমিক। তাকে উড়িয়ে দেয়া খুব সহজ না। ফলে তাকে সার্কুলেট না করাই হয়তো কলকাতার পলিসি। আশ্চর্য, এত এত বইয়ের অনুবাদ হয় কলকাতায়, কিন্তু জয়া চ্যাটার্জি হয় না!

হে কলকাতার ভাইবোনেরা, জয়া চ্যাটার্জি পড়েন! আন্তঃবাংলা আলাপের নতুন সূত্র খুলবে। বাংলাদেশের ভাইবোনেরাও পইড়েন, কারণ এই বাংলারও অনেকে হয়তো কিছু না-ভেবেই স্যার যদুনাথ সরকার ও তাঁর অনুসারীদের বস্তাপচা থিসিস গিলে বসে আছেন!

… …

COMMENTS

error: