ব্লান্ট ভোয়েসেস (৮)

ব্লান্ট ভোয়েসেস (৮)

SHARE:

এখন থেকে আমি নিজের জন্যে একটাকিছু চমৎকার কাজ খুঁজে বের করতে চাই যাতে অ্যাক্টিং ইত্যাদির পরে সেই কাজটা করে ভেতরে একটা শান্তি পাবো। শুধু বস্তুবৈষয়িক প্রতিযোগিতায় জীবনটা কাটায়াই বিদায় নিমু, হতে পারে না তা। আমি চাই নারীদের পরিসর আরেকটু বাড়ায়া দিতে একটাকিছু করতে।

একদমই বিমর্ষ সময় যাইতেসে। এরপরও বলব যে হ্যাঁ ঠিকাছে। কেননা আমারে এই বিদঘুটি সিনগুলা করতেই তো হবে। উপায় নাই এছাড়া। কাজেই এইটা ঠিকই আছে যে আমার কণ্ঠস্বরটা ন্যাচারালিই তিন-অক্টেইভ খাদে নামানো।

এক ধরনের ইফেক্টিভলি-বাইপোলার বলতে পারেন আমারে।

এত মোটা বাজেটের গাট্টাগোট্টা ছায়াছবিগুলাই কিয়েল্লিগা আপনারা বানাইতে এত মুখায়া থাকেন আমার মগজে সান্ধায় না।

আস্তেধীরে একদমই ঢিমেতালে একটা কাহিনি নিয়া আগাচ্ছে এমন ম্যুভিগুলারে অ্যাপ্রিশিয়েইট করাটা আমাদের দর্শকদের জন্য জরুরি। কিন্তু ছবিনির্মাণের পদ্ধতি ঢিমেতালা হলেও গল্পটা খাসা খাদহীন হওয়া চাই। সিনেমা খতম দিয়া বারায়া আইসাই যেন লোকের ভিতরে একটা শান্তি-শান্তি ভাব বজায় থাকে।

ব্যবসাটা হচ্ছে কেবল কথায় কথায় কাঁধ ঝাঁকানি, নিরুচ্ছ্বাস হাস্যগম্ভীরতা, আর নিজেরে সবসময় একটা বানানো উচ্চতায় রাখবার কসরত করিয়া যাওয়া। অ্যামেরিকায়, বিশেষত লসঅ্যাঞ্জালিসে, এত সভা এত ব্যবসাবৈঠক হয় যে একটাও কখনো মন্দ করেছে এমন শোনা যায় না।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

COMMENTS

error: