জুলিয়ার বাতচিত (৯)

জুলিয়ার বাতচিত (৯)

SHARE:

বাড়িতে যেটুকু সময় কাটাই সেটুকুই জীবনের সুন্দরতম সময় আমার। অনির্বচনীয় আনন্দে কাটাই বাড়িতে থাকার সময়টুকু। কোনোদিন এমনও হয় ব্রেকফাস্ট বানিয়েই কিচেনটা ক্লিনআপ করতে করতে এসে যায় লাঞ্চটাইম, লাঞ্চ সারতে না সারতেই ডিনারের টাইম এসে গেল, এবং দিনশেষে একটা আফসোস রইল যে ইস অমুক খাবারটা বাইরে থেকে আনায়ে নিলেই পারতাম।

এরচেয়ে আনন্দের আর কিছু হতেই পারে না যে আপনি এমন সমস্ত লোকজনের সঙ্গে কাজ করেন যাদেরে সত্যি ভালোবাসেন, হতে পারে এদেরই কারো সঙ্গে প্রেমাবদ্ধ আপনি কিংবা তাদের সঙ্গে রিলেশনটা নির্যৌন ভালোবাসার, এদেরই সঙ্গে আপনি নিত্য নিজেকে ক্রিয়েটিভ রাখতে পারতেসেন আর্টিস্টিক থাকতে পারতেসেন এবং দুনিয়ার কাছে নিজেকে যেভাবে প্রেজেন্ট করতে চান সেভাবেই নিজের কাজটা হাজির করতে পারতেসেন এবং সবাই আপনার কাজে হ্যাপি হচ্ছে।

সেই প্রেমেরে প্রেমই বলা যায় না ভ্যাভ্যা-করা ভায়োলিনবাদক একটা ছাগল যদি দৃশ্যপটে গরহাজির থাকে।

হ্যাট পরতে খুব পছন্দ করি আমি। বিশেষত যদি কারো চুলের কোয়ালিটি হয় যাচ্ছেতাই বিচ্ছিরি, তাইলে হ্যাট তার জন্য একটা দারুণ কাজের জিনিশ।

সংক্ষেপে স্বীকারোক্তি এইটাই যে, গ্যারি মার্শালের কাছে আমার অনেক ঋণ। শোধ-করার-সাধ্য-নাই ঋণ আমার তার কাছে। ‘প্রেটি উয়োম্যান’ সিনেমায় আমারে কাস্ট করার কোনো সত্যিকারের যুক্তি আমি পাই নাই। কিন্তু ঘটনাটা আমার লাইফ পাল্টে দিয়েছে।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

COMMENTS

error: