কেইটের কথাবাত্রা (১৬)

কেইটের কথাবাত্রা (১৬)

SHARE:

হার্টব্রেইক বা মনভাঙা বা হৃদয়বিদার ইত্যাদি শব্দ দিয়া আমরা যা বুঝাইতে চাই, মানে কেউ আপনার মন ভেঙে দিয়ে গেছে এবং আপনি আর বাঁচবার প্রেরণা পাচ্ছেন না, তার মানে ব্যাপারটা হচ্ছে যে আপনি তারে একমুহূর্তও ভুলে থাকতে পারছেন না। তার মানে হার্টব্রেইক হচ্ছে বিস্মরণের বিপরীত জিনিশ। ভুলে যাওয়া না, মনে রাখার নামই হচ্ছে হার্টব্রেইক। আপনার হার্ট একটা জায়গায় তীব্র ব্রেইক কষেছে। বেঁচে গেছেন আপনি, কিন্তু অল্পের জন্যই গেসিলেন চলে পগারপারে। এইটা তো মনে রাখতেই হবে। এইটুকুই।

আমার মুখে বিস্তর বলিরেখা হয়েছে এবং এই বয়সে এসে এই জিনিশটা খুবই দৃষ্টিগোচর। ম্যুভিপোস্টারগুলায় আমার চেহারা দেখে নিজেই নিজেরে চিনতে পারি না, ইচ্ছে করে পোস্টারশিল্পীদেরে ডেকে বলি, ভাই, আপনারা তো আমার কপাল পুরা পালিশ করে দিয়েছেন, একটাও রিঙ্কল চোখে পড়তেসে না, আপনারা সন্দেহ নাই শিল্পী হিশেবে অত্যন্ত সফল। কিন্তু ভাই আমার কপাল কই? আমার কপালটা আমারে ফিরাইয়া দেন দয়া করে।

সারাক্ষণ আমি কিছু-না-কিছু খুঁটখুঁট কাটাকুটি করতেই থাকি। কিছু-না-কিছু বানাইতেই থাকি। হোক সেটা কিচেনে বা কাজের ফাঁকে ফাঁকে এমনি এমনি, হোক সেটা খানাখাদ্য বা কাগজের উড়াজাহাজ। এই জিনিশটা আমারে রিল্যাক্স দেয়। কাটাকুটি কিংবা রান্নাঘরে আনাজ কুটার সময় আমি বিস্তর চিন্তাভাবনা করতে পারি।

পিকনিকে গেলে ব্যাপক খুশি হই আমি, হঠাৎ-পিকনিকগুলায়, পিকনিক বিশেষভাবেই আমার বাচ্চাদেরে নিয়া বা আমার পার্টনারের লগে। বিগ ফ্যামিলি গ্যাদারিংস্ ভাল্লাগে আমার। মুদিদোকানে যেয়ে আমি সুখ পাই ভীষণ, টুকিটাকি খানাখাদ্য বানাইবার জিনিশগুলা খুঁজে খুঁজে বের করে আমি তীব্র খুশি হই।

টাইটানিকের আগে, হ্যাঁ, বেশকিছু কাজ আমি করেছি এবং, হ্যাঁ, একটা অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডের জন্যও নমিনেটেড হয়েছিলাম আমি, কিন্তু তখনও ওয়ার্ল্ডফেমাস বা যাকে বলে বিশ্ববিখ্যাত হই নাই। তবে এখন আমি বিশ্ববিখ্যাত। যদিও নিজেরে বিশ্ববিখ্যাত ভাবতেই আমি সংকুচিত বোধ করি, বিব্রত বোধ করি।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

গানপার

COMMENTS

error: