শৈলিন উডলির কথাগুলি (৬)

শৈলিন উডলির কথাগুলি (৬)

SHARE:

মোটামুটি শিক্ষিত পড়াশোনাজানা মানুষ হিশেবেই নিজেরে ভাবতে চাই আমি। কিন্তু গোল বাঁধে অভিনয়ের বেলায়। মানে, যেইটা বলতে চাই যে, অভিনয়ে এসে পদে পদে বুঝতে পারছি যে এমন কোনো শিক্ষাদীক্ষা আমার নাই। ডিরেক্টর, প্রোডিউস্যর, অ্যাক্টর ইত্যাদি কিছুই ঠিক মিলিয়ে উঠতে পারি না আমি আমার অধীত বিদ্যায়।

অ্যাক্টিং জিনিশটা আমার কাছে একটা প্যাশন এবং একইসঙ্গে একটা আর্ট। সবসময়ই তা মনে হয় এবং এই ধারণা আমার বদলাবে বলেও মনে হয় না। আগে থেকে ভেবেচিন্তে রাখা কোনো নীতি বা বিধিবিধানের ধার আমি ধারি না অ্যাক্টিঙের বেলায়। যে-কোনোকিছু করতে রাজি আমি অভিনয়টা ভালো জায়গায় নেবার জন্যে। এই সবকিছুই নির্ভর করে একটা স্ক্রিপ্টের উপরে। একটা ভালো স্ক্রিপ্ট। হয় স্ক্রিপ্টের ব্যাপারে প্যাশন থাকবে না-হয় থাকবে না। না-থাকলে অ্যাক্টিঙের প্রশ্নই আসে না। আমার দৌড়াবার শক্তিটা আসতে হবে সেই স্ক্রিপ্ট থেকেই।

জর্জ ক্লুনি আমার কাছে এক অতিমানবের নাম। আশ্চর্য একটা মানুষ জর্জ ক্লুনি। তিনি শিখিয়েছেন আমায় একইসঙ্গে একটা ভালো মানুষ এবং ভালো অভিনয়শিল্পী কীভাবে হতে হয়।

অ্যাক্টিং জিনিশটা আমার কাছে স্রেফ সংলাপ বলা বা হাতপা ছোঁড়া না। আর্ট, অভিনয় মানে আমি বুঝি এর ভিতরের আর্টটা। ব্যাপারটা আগে বা পরে নয়, ব্যাপারটা সাধিত হয় ফিল্মের সেটে। সেটে যেয়ে যেই জিনিশটা আমরা বানাই সেইটাই ফিল্মের আর্ট। ফিল্মসেটে যেয়ে একমনে একাগ্রচিত্তে নিজে যেটুকু করার কথা তার সেরাটা বাইর করার চেষ্টা থাকে আমার। ব্ল্যাক একটা ক্যানভাসের সামনে খাড়ায়া আঁকার মতো গোটা ব্যাপারটা।

হাওয়াই জায়গাটায় যাই নাই আমি। কিন্তু মনে হয় সবসময় যে আমার শরীরটা লসঅ্যাঞ্জ্যালিসের এবং মনটা হাওয়াইয়ের। কেননা আমি হাওয়াইয়ের প্রেমে মশগুল। হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জেই কোথাও হতে পারে আমার সত্যিকারের বাড়ি। দ্বীপভূমিটা আসলেই ভীষণ শান্তির একটা জায়গা হবার কথা। আমি যদিও এখন অব্দি হাওয়াই যাই নাই একবারও।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

COMMENTS

error: