যেমন বলেন সোফিয়া লোরেন (২)

যেমন বলেন সোফিয়া লোরেন (২)

SHARE:

যৌনতা ব্যাপারটা হচ্ছে মুখধোয়ার মতো, প্রতিদিন মুখ ধুতে হয়, নইলে চেহারাছিরি থাকে না আর নিষ্প্রভ হয়ে পড়ে শরীরস্বাস্থ্যও। যত-যা-কিছুই হোক রোজ মুখ ধোয়া মাস্ট। তবে প্রেম ছাড়া যৌনতা আসলেই বিতিকিচ্ছিরি। যৌনতা সবসময় প্রেম মেনে চলে, প্রেমের পরে যৌনতা, ব্যত্যয় কখনো নয়।

আমি গ্রীবাদীর্ঘ লম্বা জিরাফ এক। আমি হাঁটি জিরাফেরই মতো গলা আর পা বাড়িয়ে। খেয়াল করবেন, জিরাফ কিন্তু বোকাসোকা হাবা জন্তু একটা।

খানাখাদ্যের ব্যাপারে কেয়ার্ফ্যুল থাকবেন সবসময়, আদারোয়াইজ হুৎকো মোটা হবেন দুম করে টের পাবার আগেই। পিঠে-পেটে ঘাড়েগর্দানে মেদস্ফীতি কি কেউ চায়? তাইলে কেয়ার্ফ্যুল থাকেন, কম খান, তিনআঙুলের একচিমটি করে যদি সম্ভব হয়। পারলে উপাস করেন। কিন্তু উপাস করা আমারে দিয়া হবে না। আমি দিনরাইত খাই।

আমার কপাল খুবই ভালো। অসামান্য সুন্দর এক মায়ের পেটে আমি জন্মেছি।

সাধারণের জন্য নয় এমন কোনো কঠিন পেশায় জীবিকা চালাইতে গেলে একটা জিনিশ ছাড়া আগাইতে পারবেন না আপনি, আর সেইটা হচ্ছে নিজের উপর বিশ্বাস। এইজন্যই দেখবেন মাঝারিমেধার মানুষজনও অনেকসময় ভালো করে ফেলে ক্যারিয়ারে এবং উঁচা মেধারা খানিক দূরে যেয়ে মুখ থুবড়ায়। এর কারণ আর কিছু নয়, তাদের দুইয়ের মধ্যে একজনের নিজের প্রতি বিশ্বাস ছিল উঁচু।

তুমি যদি না কাঁদো, তোমার চোখ দ্যুতি হারাবে অকালেই।

নিজের জন্য কোনোকিছুই আলাদা ভাবতে পারবে না যদি তুমি মা হও। সবকিছু নিয়া মায়েরা ভাবে দুইবার করে, একবার নিজের এবং আরেকবার তার সন্তানের জন্যে।

দুইটা ভাগ্য নিয়া আমি জন্মেছিলাম বলে এখনও গর্ব হয় ভেতরে ভেতরে। এই দুইটাই জন্মসূত্রে পাওয়ায় আমার সুবিধে হয়েছে। এক হচ্ছে জ্ঞানবুদ্ধি এবং আরেকটা দারিদ্র্য।

কাজেকর্মে কোনো ফুর্তি নাই যদি তুমি নিজে যা চাও তা করতে না পারো।

অনেকেই ভাবে যে তারা যা চায় তা পায় না কারণ তাদের যথেষ্ট ক্ষমতা নাই বা তারা ভাগ্যবিড়ম্বিত। সত্যি বলতে কি এরা আসলেই হীনবল। তুমি যা চাও তা যদি সত্যি সত্যি সাংঘাতিকভাবে প্রাণপণে চাও তবে তা পাবেই পাবে।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

COMMENTS

error: