শ্রাবণের মেঘগুলো ও ডিফ্রেন্ট টাচ

শ্রাবণের মেঘগুলো ও ডিফ্রেন্ট টাচ

SHARE:

শ্রাবণের মেঘগুলো জড়ো হলো আকাশে
অঝোরে নামবে বুঝি শ্রাবণী ঝরায়ে
আজ কেন মন উদাসী হয়ে
দূর অজানায় চায় হারাতে।।

কবিতার বই সবে খুলেছি
হিমেল হাওয়ায় মন ভিজেছে
জানালার পাশে চাপা-মাধবী
বাগানবিলাসী-হেনা দুলেছে।।

মেঘেদের যুদ্ধ শুনেছি
সিক্ত আকাশ কেঁদে চলেছে
থেমেছে হাঁসের জলকেলি
পথিকের পায়ে-হাঁটা থেমেছে।।

আজ কেন মন উদাসী হয়ে
দূর অজানায় চায় হারাতে …
কথা ও সুর : আশরাফ বাবু ।। ব্যান্ড : ডিফ্রেন্ট টাচ

ডিফ্রেন্ট টাচ

‘শ্রাবণের মেঘগুলো’ গানটি ডিফ্রেন্ট টাচ-এর একটি তুমুল জনপ্রিয় গান। সেই তখন থেকে এখন পর্যন্ত জনপ্রিয়তা অক্ষুণ্ন রেখে এগিয়ে-চলা এই গানটি এখনো যে-কোনো ঝিমিয়ে-পড়া অসাড়কেও মুহূর্তের মধ্যে চাঙ্গা করে তোলে। কিন্তু এমন মুহূর্তের মধ্যেই কি জন্ম হয়েছিল ‘শ্রাবণের মেঘ’ গানটি? খানিকটা হ্যাঁ, খানিকটা না — জানালেন গানটির সুরকার-গীতিকার আশরাফ বাবু, —

সময়টা ছিল ১৯৮৭ সাল এবং বাংলা শ্রাবণ মাস। প্রায় তিন-চারদিন যাবৎ এক-নাগাড়ে বৃষ্টি পড়ছে। সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা হচ্ছে ব্যাহত। সকালে ডিফ্রেন্ট টাচ  চলে যাবে ঢাকায়। তাদের সব-ধরনের প্রস্তুতিই মোটামুটিভাবে শেষ হয়েছে। প্রথম অ্যালবামের গান রেকর্ডিঙের জন্য একটি গান ছাড়া বাকি সব গান মোটামুটিভাবে প্রস্তুত। কিন্তু একটি গান এখনো বাকি এবং এই গানটা দেওয়ার কথা আমার। কিন্তু মনের মতো কোনো গান করতে পারছি না। ঠিক যেমনটি চাচ্ছি তেমনটি যেন হচ্ছে না। এভাবে চলল সারারাত ধরে প্রায় নিস্ফল প্রচেষ্টা। অতঃপর শেষরাতের দিকে জানালার পাশে বসে শ্রাবণের বৃষ্টিধারা দেখতে দেখতে লিখে ফেললাম ‘শ্রাবণের মেঘগুলো জড়ো হলো আকাশে’।  এভাবেই এগিয়ে চলল লেখা। ভোররাতের দিকে যখন পুরো গানটা শেষ করে উঠলাম তখন একটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললাম।

কাহিনির সমাপ্তি টানলেন পিয়াল, বললেন —

আমরা আমাদের ব্যান্ডের জন্য এমন একটা গান চাচ্ছিলাম যেটাকে আমরা হাইলাইট করব এবং আশরাফ বাবু আমাদের ঠিক সেই ধরনের একটা গানই দিতে পেরেছেন। ’৮৭ সালে ডন স্টুডিওতে রেকর্ড করে যখন আমাদের প্রথম অ্যালবামের মধ্য দিয়ে গানটি রিলিজ হয় সেই তখন থেকেই কিন্তু গানটির এমন জনপ্রিয়তা।

ডিফ্রেন্ট টাচ

  • ফিচার রচনায় এম. এস. রানা ও রাসেল আজাদ। অনুলিখন প্রক্রিয়ায় ড্রাফ্‌টেড রচনাটা ফার্স্ট পাব্লিশ হয়েছিল ২০০০ খ্রিস্টাব্দে একটি বিনোদনপাক্ষিকের ঈদসংখ্যায়। আনন্দভুবন  সেই বিনোদনপাক্ষিকের নাম।

… …

COMMENTS

error: