জুলিয়ার বাতচিত (৫)

জুলিয়ার বাতচিত (৫)

একটা ব্যাপার আমার সবসময় মনে হয় যে কেবল একজন মহান শিক্ষকের উপস্থিতিই আপনার জীবনটাকে শেইপ আপ করে দেবে তা নয়, সে-রকম কোনো শিক্ষকের অনুপস্থিতিও আপনার জীবনের গতি নির্দিষ্ট করে দিতে পারে। বেজায় হাততালি পেয়ে বেড়ে-ওঠা মানুষের চেয়েও অবহেলায় আর উপেক্ষায় বেড়ে-ওঠা মানুষের জীবন অনেক বেশি অর্থবহ, সফল ও সুন্দর হতে পারে।

রান্নাবান্না করতে আমি ভীষণ ভালোবাসি, এবং আরও বেশি ভালোবাসি ডিনারটেবিলের চারপাশ ঘিরে খেতে-বসা আমার ফ্যামিলিমেম্বারদের মুখাবয়বগুলো।

পরিবারের সবগুলা মানুষের লাগি তিনটে বেলাতেই কিছু-একটা রান্নাবান্না করতে পারাটা আমার কাছে একটা দারুণ সুবর্ণ সুযোগ ও অনেক বড় সম্মানের ব্যাপার। আর এইটা মাঝেমাঝে একটুখানি বিলাসিতাই মনে হয় যে এই সুযোগটা আমার প্রায়ই নসিবে জুটে যায় এবং নিজে বুঝে ওঠার আগেই দেখি যে একটানা কয়েকদিন ধরে কেবল রান্নাবান্নাতেই কাটিয়েছি ফ্যামিলিমেম্বারদের মুখে একটুখানি ঝিলিকমারা হাসি দেখবার নেশায়। ফ্যামিলির মানুষদের টেইক-কেয়ার আপনি কীভাবে করেন কেবল এই জিনিশটা নিয়া আপনার গর্বপ্রকাশের ব্যাপারটা আমি ভীষণ সুনজরে দেখি।

লোকে স্ক্যান্ডাল ভালোবাসে; লোকে ড্রামা পছন্দ করে। একটা সাধারণ পরিস্থিতির গভীরে ঢুকে দেখতে চায় এমন একটাকিছু যা সে শাদামাটাভাবে দেখতে পারছে না, তাই সে চায় স্ক্যান্ডাল আর ড্রামার ভিতর দিয়ে সেইগুলা বারায়া আসুক। এমন একটা চাক্ষুষ ঘটনা রচনা করতে একেকটা মানুষ সাধ্যের আওতায় যা-কিছু করা যায় তা-সবই করে যেতে প্রস্তুত থাকে।

যে-ক্যারেক্টারটাই করুন আপনি, থাকুন যতই-না নিবেদিত ও সৎ সেই ক্যারেক্টার প্রতি, দিনশেষে আপনারে বাড়ি ফিরে যেতে হয় এবং সেই সময়টায় আপনি নিজেকে ছাড়া আর-কাউরেই পাচ্ছেন না ক্যারেক্টার হিশেবে।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

বিদিতা গোমেজ
আগের পোষ্ট

COMMENTS

error: