মেঘ ও ভবঘুরে খরগোশ

মেঘ ও ভবঘুরে খরগোশ

রৈখিক হোক অথবা অরৈখিক, অধুনা বাংলা কবিতায় কিছু লক্ষণ সর্বত্র সুলভ; যথা, নাগরিক কথ্য বুলির সংলগ্ন কয়েনেজ লেখ্যরূপে ব্যবহার করা, শাহরিক শব্দচকমকি দিয়ে টেক্সটের সীমা ও সামগ্র্য দ্যোতনা বাড়ায়ে নেবার প্রয়াস, উপরতলের অলঙ্করণ খসায়ে ফেলে শেইপআপকৃত আপাত অকাব্যিক কবিতায় অপূর্বভাবিত দশা, পাঠকৃতিস্থিত পদক্রমে এবং বিশেষভাবেই ক্রিয়াপদের আর্বেইন কলোক্যুয়াল ফর্মেশনের দিকে এম্ফ্যাসিস দেবার অ্যাগ্রেসিভ পোয়েটিক স্ট্র্যাটিজি ইত্যাদি সব-কয়টি চিহ্ন মোস্তফা হামেদী নিজের ডেব্যু কবিতাবইতে রেখেছেন; সবকিছুর পরেও কবির মধ্যে একটা সাম্প্রত-চিরায়ত দ্বন্ধ সচল রয়েছে দেখা যাবে, যে-দ্বন্ধ তরুণ কবিকে কোঅর্ডিনেশন-ইন্টিগ্রেশন প্রোসেসের ভেতর দিয়ে যেতে ডিক্টেইট করে, এর ফলে এই কবির ও বাংলা কবিতার বিকাশধারা আশাকরোজ্জ্বলভাবে ম্যাচিউরিটির দিকে দ্রুত প্রধাবিত বলে মনে হয় পাঠকের কাছে।

এখানে এসে খিরাই খেতের পাশে লুকনো রোদ দেখবেন; বাঁশের পুল পেরোনো মাঠের নির্জনতা, ধুলা-উড়ায়ে-আসা বিষণ্ণতার ধেনু, কলার পাকা কাঁদিতে আড্ডা-মারা গোধূলি, ছাড়াবাড়িতে নাজেল-হওয়া ফাল্গুনি বিকেল … ইত্যাদি বিরল দৃশ্যরাজির সনে পাঠকের মোলাকাত হবে। এইসব, আর্বেইনিটির পাশে এইধারা প্যাস্টোর‌্যাল সাব্লিমিটি … এইসব মেঘ, এইসব খরগোশ, ভবঘুরন্ত কল্পচ্ছবিগুলো!

২০১৫ সালে এই বই বেরিয়েছিল। মোস্তফা হামেদীর দ্বিতীয় কবিতাবই নিশ্চয় এর মধ্যে বেরিয়েছে, একাধিকও হতে পারে, সেসব খবর আপাতত খুঁজছি না। তবে নতুন কবির, অংশত নতুন কবিতারও, নিশান ও ইমান সম্পর্কে জানতে একটা ভাষার ফ্রেশ ব্লাড তথা ভাষাজাত তরুণ কবির ডেব্যু কবিতাবইয়ের বিকল্প তো হতেই পারে না আরকিছু।

প্রতিবেদন / আতোয়ার কারিম

… …

গানপার

COMMENTS

error: