পেনেলোপি স্পিকিং (২)

পেনেলোপি স্পিকিং (২)

SHARE:

ব্যালে ড্যান্সের ডিসিপ্লিনটা মারাত্মক অবসেসিভ একটা ব্যাপার। কেউ যদি নিজের গোটা জীবনটা এর পিছনে ডেডিকেইট করে দিতে পারে তাইলেই তারে দিয়া ব্যালে হবে। পায়ের বুড়া আঙুলের নখ উপড়াবে, তারপরেও তুমি সেই নখ ক্ষিপ্র হাতে ছিঁড়ে ফেলে দিয়ে ব্যালে ড্যান্সের জন্যে উঠে দাঁড়াবে এবং মুখে মোহনীয়া হাসি ধরে রাখবে। আমি একজন প্রোফেশন্যাল ব্যালে ড্যান্সার হতে চেয়েছি সবসময়।

বাচ্চা জন্মানো আর মাতৃত্ব বিষয়ে যা-কিছু শুনেছ তুমি, ক্লিশে সবই, ক্লিশে অতিশয়। ক্লিশে হলেও সত্যি। ভীষণ অব্যর্থ সত্যি। কিন্তু সত্যিগুলি এমনই যে এত সুন্দর সুখকর অভিজ্ঞতা আপনার আর কোনোদিনই হয় নাই আগে।

এমন হয় যে মাঝেমাঝে আপনি বিহান বেলার সফেদ আলোয় নিজের মুখের একটা ক্লোজআপ দিলেন কোনো দৃশ্যের রচনাখাতিরে, যেখানে আপনি ভীষণ নিষ্পাপ আর স্বর্গীয়; পরে এই দৃশ্যেরই রিমেইনিং অংশটা আপনি করলেন হয়তো সকালবেলার সাতঘণ্টা বাদে। এখন, কথা হচ্ছে, এই নিষ্পাপতা এই স্বর্গবিভা আপনি কীভাবে সারাদিনের রইদে ঘামে ক্লেদে ক্লান্তিতে না হারিয়ে ক্যামেরার সামনে ফের মেলে ধরলেন?

নিজেরে চেষ্টা করি কোনোভাবে লেবেলের ভিতরে না ঢুকাইতে। জেনারেল অর্থে লিবেলিঙে অ্যালার্জি আছে আমার। আমি আমার চারপাশে অনেক শক্তিদীপ্তা নারীদের দ্বারা আবেষ্টিত, আমি তা তারিফের দৃষ্টিতেই দেখে থাকি, তবু আমি চাই যেন কোনো লেবেলিঙে নিজেরে না মাপি।

নিউইয়র্কে এসেছিলাম ব্যালে শিখতে এবং সেইসঙ্গে ইংলিশ ভাষাটা।

অভিনয় দিয়া জীবিকা নির্বাহ করা আমার কল্পনাতেও ছিল না। আমার বেড়ে ওঠার দিনগুলায় সায়েন্সফিকশনের মতোই ছিল ঘটনাটা। আমার চারপাশে এমন কাউরেই চিনতাম না যারা অভিনয় দিয়া গ্রাসাচ্ছাদন চালায়। আর্টের বিকি দিয়া কারো অন্নবস্ত্র হতে পারে এমন ভাবনাটাই ছিল না আমার বিকাশদিনের গণ্ডিটায়।

 

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

 

COMMENTS

error: