জীবনোপলব্ধি : ইনগ্রিড বার্গম্যান

জীবনোপলব্ধি : ইনগ্রিড বার্গম্যান

চুমু জিনিশটা প্রকৃতির এক চমৎকার কারসাজি, কথারা যখন কামনা ছাপিয়ে কোলাহল হয়ে ওঠে তখন সেই বিচ্ছিরি বাক্যরোল রুখে দিতে এর জুড়ি নাই।

অন্যের নকল নয়, নিজের মতো হও। দুনিয়া চিরকাল আসলের স্তুতিগাথা গায়, নকলের নয়।

চুমু হচ্ছে একটা আরক্তিম ফিসফিসানির নাম যা কানে কানে নয় বলতে হয় মুখে মুখে।

সুখ একইসঙ্গে সুস্বাস্থ্য ও দুঃসহ স্মৃতির প্রতীক।

ভুবনে এত সমস্ত মনুষ্যভিড়ে আমি ছিলাম সবকিছুইতেই পিছনকুনো জড়সড় একটা মানুষ, কিন্তু আমার ভিতরে সেই সিংহটি ছিল গোঙরানি থামে নাই যার একমুহূর্তের জন্যও।

অনুতাপ নাই জীবনের কোনোকিছু নিয়া। পাছে লোকে কিছু বলে, এই ভাবনায় তাড়িত যদি হতাম তাইলে যে-জীবন আমি যাপন করে এসেছি সেইটা কি পারতাম? লোকনিন্দার ভয়ে সন্ত্রস্ত হইলে তো আমি জিন্দেগি জিনে ক্যে লিয়ে আদার কিছু ওয়ে আউট করতাম।

সত্যি সত্যি তুমি কাঁদছ কি না তা নিয়া মাথাব্যথা নাই কারো। দর্শকের যেন মনে হয় তুমি কাঁদছ, ঘটনা এইটুকুই।

আমার মনে আছে একদিন পুকুরপাড়ে আমি নিরিবিলি বসে আছি, হঠাৎ খেয়াল হলো গাল বেয়ে নামছে চোখের পানি। ঘটনা কি? আমি কি অসুখী? জীবনে আমি সফল, সুখবিলাস আমার চারপাশে ছড়ানো, অঢেল নিরাপত্তা আমার জীবনে। এইসব কিচ্ছুটিই জীবনের জন্য যথেষ্ট নয়। ভিতরে একটা ভাঙচুর চলছিল অতকিছু সত্ত্বেও।

ক্যান্সার-আক্রান্ত মানুষ যদি নিজের নসিব মানিয়া না নেয়, একে নিয়ে বাঁচতে যদি না শেখে, যে-কয়টা দিন তার হাতে আছে সেই কয়টাও সে খোয়াবে।

নেভার অ্যাগেন! অনেক হয়েছে! এই জীবনে বিয়ার সাধ আমার চিরতরে মিটেছে। একজীবনে তিনটা শাদি করেছি। তিনবারই যথেষ্ট। দরকার নাই আর, মাফ চাই।

সিনেমা আমি অনেক করেছি জীবনে, বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সিনেমাও তো করেছি। কিন্তু লোকে কেবল বোগার্টের সঙ্গে করা সিনেমাটা নিয়াই জিগায়। আজব!

অন্যের জীবনে অনুপ্রবেশের অধিকার কারো রয়েছে মনে করি না আমি। কিন্তু লোকে অনধিকার সেই চর্চাটা চালায় দেখতে পাই। কিন্তু লোকে যেন অভিনয়কারী এবং নারী, এই দুই ভিন্ন অস্তিত্ব সসম্মান আলাদা করে এইটা আমি চাই।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

বিদিতা গোমেজ

COMMENTS

error: