সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার : সশ্রদ্ধ সালাম || শামস শামীম

সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার : সশ্রদ্ধ সালাম || শামস শামীম

২০১০ সন। সিলেট বিভাগের মূলধারার সাংবাদিকদের নিয়ে একটি কর্মশালার আয়োজন করে এমআরডিআই । সিলেটের একটি উন্নত হোটেলের কনফারেন্স রুমে প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। একটি সেশনে প্রধান প্রশিক্ষক হয়ে আসেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার ভাই। আমরা খু্ব ইনজয় করেছিলাম উনার সেশন। কারণ কোনো ভারিক্কী কথা বলেননি তিনি। সহজ ও সাবলীলভাবে আমাদের ক্লাস নিয়েছিলেন।

সেশন শেষে উনার সঙ্গে আলাদাভাবে পরিচিত হই। এর আগে উনার বহু সুনাম শুনেছি। কিন্তু ওইবারই প্রথম কাছ থেকে দেখা। সেদিন বেশ কিছুক্ষণ কথা বলি। তিনি হাওরের কৃষি, সংস্কৃতি, প্রাণ ও প্রকৃতি, রাজনীতি ও উন্নয়ন নিয়ে কথা বলেছিলেন। আমার কথা শুনে উনি সন্তুষ্ট হন বলে মনে হলো। এক-পর্যায়ে তিনি বললেন, তুমি তো ঢাকার যে-কোনো হাউসে কাজ করার যোগ্যতা রাখো। এখানে পড়ে রয়েছে কেন?

আমি ঢাকায় না-যাওয়ার কারণ উনাকে বললাম। তিনি ভিজিটিং কার্ড ধরিয়ে দিলেন। কখনো যদি ঢাকা যাওয়ার ইচ্ছে পোষণ করি তাঁর শরণাপন্ন যেন হই সে-কথাটিও বলে দিলেন। আমি উনার পা ছুঁয়ে সালাম করেছিলাম।

তারপর সুনামগঞ্জে আরো কয়েকবার কথা ও দেখা হয়। গত বছর উনার বন্ধু ও ভারতের বিখ্যাত সাংবাদিক আশীষ রায়, উনার সহধর্মিনী ও সুনামগঞ্জের পাইলগাও জমিদারের নাতনি, বিজ্ঞানী শামীমভাই এবং উনাকে সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। আমি উনার জন্য ও অন্য অতিথিদের জন্য কয়েকটি বই উপহারস্মারক হিসেবে প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে পছন্দ করি। ওই অনুষ্ঠানও সঞ্চালনা করেছিলাম। অনুষ্ঠান শেষে রাতে আমরা একসঙ্গে ডিনার করেছিলাম। এর আগে সারাদিন তিনি তাহিরপুরের পর্যটন এলাকা ঘুরে দেখেন বন্ধুদের নিয়ে। পরে বেশ রাত পর্যন্ত সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে স্মৃতিচারণ করেন। জীবদ্দশায় নিজ এলাকার সাংবাদিকদের সঙ্গে ওই মতবিনিময়গুলোই ছিল উনার অঞ্চলের সাংবাদিকদের সঙ্গে শেষ মতবিনিময়।

তিনি তরুণ প্রজন্মের সাংবাদিকদের নানা পরামর্শ দিয়েছিলেন। প্রগতি ও মানবতার পক্ষে থাকার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

আমার বড় পাওনা ছিল ২০১০ সনের পর থেকেই অকৃতদার এই সাংবাদিকের সঙ্গে আমি মাঝেমধ্যে ফোনে যোগাযোগ রাখতাম। আমার নামটিও মনে রেখেছিলেন। তাঁর কয়েকটি বই তৌফিকভাইর মাধ্যমে আমাকে উপহার দিয়েছিলেন। বিশাল মানুষের কাছ থেকে এই উপহার ছিল অমূল্য।

আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মানুষ হাসান শাহরিয়ার চৌধুরী ওরফে খোকনভাইকে মহামারি করোনা কেড়ে নিলো। ১০ এপ্রিল ২০২১ খ্রিস্টাব্দ সজ্জন এই কৃতী সাংবাদিকের শরীরী জীবনাবসান হলো। জাতি হারালো একজন প্রাজ্ঞ, রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক ভাষ্যকার, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাংবাদিককে। উনি অমর হয়ে থাকবেন কাজের মাধ্যমে। অনুপ্রেরণা হয়ে আমাদের হৃদআকাশ প্রোজ্জ্বল করে রাখবেন সতত। অতল শ্রদ্ধা তাঁকে।


গানপারে লেখকের ও লেখক সংক্রান্ত অন্যান্য লেখাগুলা চাইলে এই লিঙ্ক দ্রষ্টব্য : শামস শামীম গানপারভুক্তিমালা

… …

COMMENTS

error: