কেইটের কথাবাত্রা (৪)

কেইটের কথাবাত্রা (৪)

বিলাসিতা বলেন বা অবকাশযাপন যা-ই বলেন, আমার কাছে এর একটাই মানে, আর তা হচ্ছে আমার বাচ্চাদের সঙ্গে একবিছানায় গড়াগড়ি করা আর অফুরন্ত গল্পের বই পড়ে পড়ে শোনানো। সবসময় আমি এই কাজটা করি। এদিক থেকে আমার ভাগ্য অনেক ভালো।

প্রকৃতির সবুজ, বিশেষ করে গাওগেরামের গভীরে গেলে যে-সবুজের সাক্ষাৎ পাই, আমার জন্য খুবই দরকারি জিনিশ। সবুজ আমার মাথা সাফ করে দেয়।

অত্যন্ত শক্তপোক্ত মানুষ আমি। আর তা না হয়ে তো উপায় নাই, কেননা আপনি যদি বাচ্চাকাচ্চার মা হন তো শক্তপোক্ত হতেই হবে আপনাকে।

মোটামুটি তেরো-চোদ্দ বছর বয়স থেকেই নিজেকে ম্যাচিউর ভাবতে শুরু করেছি আমি। মানে, যেটা আমার বয়স না আমি নিজেকে সেই বয়সে আগে থেকেই কল্পনা করে এসেছি।

যা-কিছুর কোনো মানে বোঝা যায় না বা মানে হয় না তা-কিছুতে আমি বিশ্বাস করি।

আমি ছিলাম সেই শিশুদের দলে যারা কোনোদিন দৌড়-প্রতিযোগিতায় জিততে পারে নাই। হাইজাম্পেও আমার কোনো পুরস্কার জুটে নাই। ছোটবেলা থেকেই যারা ভালো ফল আর বড় বড় পুরস্কার পেয়ে অভ্যস্ত, আমি তাদের তালিকায় জায়গা পাবো না।

চয়ন, সংকলন ও অনুবাদন : বিদিতা গোমেজ

… …

পড়ুন: 

কেইটের কথাবাত্রা (৫)

গানপার
পরের পোষ্ট

COMMENTS

error: